Tag archives for স্বামী-স্ত্রী

চাঁদনি রাত

Bookmark

Share

স্ত্রীঃ এমন সুন্দর চাঁদনি রাতে কার না ছাদে যেতে ইচ্ছে করে!
স্বামীঃ প্যাঁচা ও চামচিকার।

শক্ত হওয়ার তেল

Bookmark

Share

স্ত্রীঃ চুলের গোড়া শক্ত হওয়ার তেলটা এনেছ?
স্বামীঃ হ্যাঁ, তুমি বলেছ আর আমি না এনে পারি? এই নাও।
স্ত্রীঃ থাক, তোমার কাছেই রাখ। তোমার অফিসের ওই রিসিপশনিস্ট মেয়েটাকে দিও। ওর মাথার চুল আজকাল প্রায়ই তোমার জামায় আটকে থাকে।

পরস্পরকে চুমু খায়

Bookmark

Share

স্ত্রীঃ প্রত্যেক দিন ছেলে মেয়ে দু’টিকে দেখি বিদায় নেবার সময় পরস্পরকে চুমু খায়। তুমি ওরকম কর না কেন?
স্বামীঃ মেয়েটির সঙ্গে তো আমাকে পরিচয় করিয়ে দাও নি।

নববিবাহিত দম্পতি

Bookmark

Share

নববিবাহিত দম্পতির মধ্যে কথা হচ্ছে।
স্ত্রীঃ যদি বলি আমার উপরের পাটির দাঁতগুলো বাঁধানো, তবে কি তুমি রাগ করবে?
স্বামীঃ মোটেই না, আমি তবে নিশ্চিন্তে আমার পরচুলা আর কাঠের পা টা খুলে রাখতে পারব।

চিন্তা

Bookmark

Share

স্বামী স্ত্রী বিছানাতে চুপচাপ বসে আছে…
স্ত্রী ভাবছে – আমার সাথে কেন কথা বলছে না?!!
সে কি অন্য কোন মহিলার কথা চিন্তা করছে?
আমার মুখে কি ভাজপড়ে গেছে? অসুন্দ লাগছে?
তার কি আর আমাকে ভালো লাগেনা??
আমার মেকআপ কি আর ওকে আকৃষ্ট করতে পারছে না??
সে কি আমার কোন কথাতে বিরক্ত??

আর এদিকে লোকটা চিন্তা করছে – আশরাফুল রে BPL এর আইকন প্লেয়ার কেন করলো? আর প্লেয়ার পাইলো না?”

স্বামী স্ত্রীর বিবাহ বিচ্ছেদ

Bookmark

Share

স্বামী-স্ত্রীর বিবাহবিচ্ছেদ প্রক্রিয়া চলছে আদালতে। তাদের শিশু বালককে প্রশ্ন করা হলোঃ
– তুমি কার সঙ্গে থাকতে চাও – বাবার সঙ্গে নাকি মায়ের সঙ্গে?
– যার ভাগে কম্পিউটার পড়বে, তার সঙ্গে।

বিয়ে করতে বারণ

Bookmark

Share

স্ত্রীঃ তোমার বন্ধু যাকে বিয়ে করতে যাচ্ছে সে মেয়েটা কঠিন দজ্জাল। তাকে বারন করো।
স্বামীঃ কেন বারন করব ও কি আমার সময় বারণ করেছিল?

ট্রেনের জন্য অপেক্ষা

Bookmark

Share

একগাদা  বোঝা বয়ে নিয়ে স্বামী হাঁপাতে হাঁপাতে প্লাটফর্মে এসে একটুর জন্য ট্রেন মিস করল। রাগে স্ত্রীকে সম্বোধন করে বলল, “তুমি তৈরি হতে এত দেরি না করলে ট্রেনটা মিস করতাম না।” স্ত্রী সমান রাগ দেখিয়ে বলল, “হুঁ তুমি যদি এত তাড়াতাড়ি না করতে তাহলে আমাদের পরবর্তী গাড়ির জন্য এতক্ষণ অপেক্ষা করতে হত না।”

বিয়ের প্রথম তিন বছর

Bookmark

Share

বিয়ের প্রথম বছরে স্বামী বলে আর স্ত্রী শোনে।

দ্বিতীয় বছরে স্ত্রী কথা বলে এবং স্বামী শোনে।

তৃতীয় বছরে তারা উভয়ই কথা বলে এবং তাদের প্রতিবেশীরা শোনে।

চামচ দিলে না কেন?

Bookmark

Share

স্বামী: মেহমানকে খাবার দিলে, কিন্তু চামচ দিলে না কেন?
স্ত্রী: ভয় লেগেছিল।
স্বামী: কিসের ভয়?
স্ত্রী: না মানে, চামচগুলো আমি ওদের বাসা থেকেই এনেছিলাম। দিলে যদি টের পেয়ে যায়।