Tag archives for ডাক্তার

আবার আসবে কিন্তু

Bookmark

Share

হাসপাতালে এক রোগী দীর্ঘদিন থাকল। ডাক্তার, নার্স, রোগী সবার সাথে তার খাতির হয়ে গিয়েছিল। একদিন সুস্থ হয়ে চলে যাচ্ছে সবাই বলল, “আবার আসবে কিন্তু”।

চুরুট ধরা

Bookmark

Share

১ম বন্ধুঃ বা!, তুমি দেখি চুরুট ধরেছ!

২য় বন্ধুঃ কি আর করি, ডাক্তার আমাকে সিগারেট ছুঁতে বারন করেছেন।

পায়ের উপর লেখা

Bookmark

Share

রোগীঃ আমার পায়ের উপর কী লিখলেন?
ডাক্তারঃ  আপনার রোগের উপর  একটা ফুটনোট।

বিশ্বাস

Bookmark

Share

দুই বান্ধবীর আলাপ করছে।
– আমি ডাক্তার সাহেবকে বলেছি যে, আজ সন্ধ্যায় যখন তিনি আমাকে পরীক্ষা করবেন তখন যেন নার্স সাথে থাকে।
– কেন? একা অবস্থায় ডাক্তার সাহেবকে বিশ্বাস করতে পারছ না?
– তা পারছি কিন্তু ওয়েটিং রুমে আমার স্বামীর সঙ্গে নার্সকে বিশ্বাস করতে পারছি না।

শশা ও কোলবালিশ

Bookmark

Share

এক লোক হন্ত দন্ত হয়ে ডাক্তারের কাছে এসে বলল,
– ডাক্তার সাহেব, সর্বনাশ হয়ে গেছে। কাল রাত স্বপ্নে দেখেছি আমি ইয়া বড় একটা শসা খেয়ে ফেলেছি।
– আরে! এতে চিন্তার কী আছে?
– কিন্তু সকালে উঠে আমার কোলবালিশটা যে আর খুঁজে পাচ্ছি না!

সাইকিয়াট্রিস্টের কাছে

Bookmark

Share

সাইকিয়াট্রিস্টের কাছে একজন গোমড়ামুখো লোক এসে বললেন, “ডাক্তার সাহেব, আমার কিছুই ভাল লাগে না। ক্ষুধা পায় না, দুশ্চিন্তায় ঘুম হয় না, সব সময় মন উদাস হয়ে থাকে।”

ডাক্তার পরীক্ষা করে বললেন, আপনার কোন দৈহিক অসুখ নেই। আপনি এক কাজ করুন, আপনি মজার লেখক আহসান হাবীবের গল্পের বই পড়ুন, হাসতে-হাসতে আপনার শরীর মন তাজা হয়ে উঠবে।

লোকটি গম্ভীর মুখে উঠে দাঁড়ালেন। ডাক্তারকে ফি দিয়ে বললেন, “ধন্যবাদ, চলি, কিন্তু আপনার পরামর্শ আমার কোন কাজে আসবে না।”

ডাক্তার বললেন, “আগে আহসান হাবীবের লেখা পড়ুন, কাজ না হলে তার পরে বলবেন।”

লোকটি বললেন, “তার আর দরকার নেই। আমিই আহসান হাবীব।”

উপরে যাবার রাস্তা

Bookmark

Share

ডাক্তারঃ এখানে চেম্বার খোলার পর থেকে আমার পসার একদম কমে গেছে।
বন্ধুঃ তার কারণ হল, সিঁড়িতে লাগানো সাইনবোর্ডটা।
ডাক্তারঃ তার মানে?
বন্ধুঃ ওতে লেখা আছে ‘উপরে যাবার রাস্তা।’

ভয়ে ডাক্তারের কাছে

Bookmark

Share

সমস্ত শরীরে চাকা-চাকা ফোলা দেখা দেয় এক লোকের। ভয়ে ডাক্তারের কাছে যান তিনি। ডাক্তার অনেক্ষণ দেখেও রোগটা ধরতে না পেরে নিজের অক্ষমতা ঢাকার জন্য জিঞ্জেস করল, এই রোগটা কি আগেও হয়েছিল?
– জি, আগে একবার হয়েছিল।
– তা হলে এই রোগটা আগের সেই রোগ।

স্বামীর মূল্য

Bookmark

Share

মহিলাঃ আমার স্বামীকে সুস্থ করে তোলার জন্য আপনাকে কত ফি দিতে হবে?
ডাক্তারঃ আপনার কাছে আপনার স্বামীর মূল্য অনুসারেই দিন না?
মহিলাঃ এই নিন, দশটা টাকা রাখুন।

সেনাবাহিনীতে যোগ

Bookmark

Share

সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার জন্য ডাক পড়েছে জামিলের। তার স্বাস্থ্য ভালো, বয়সও পঁচিশের কম। কিন্তু জামিল সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে চায় না। তাকে যখন চোখ পরীক্ষার জন্য নিয়ে গেল তখন সে স্থির করল, চোখের ডাক্তারকে ঠকাতে হবে, নইলে চলবে না।
ডাক্তার প্রথমেই বড় দেয়ালে টাঙানো একটা চার্ট দেখিয়ে বলল, ওপর থেকে অক্ষরগুলো পড়ে যান।
– অক্ষর! অক্ষর তো একটাও চোখে পড়ছে না।
– ওই যে চার্টটা রয়েছে, দেখতে পাচ্ছেন না?
– কই না তো!
– ওই তো দেয়ালেই টাঙানো আছে।
– দেয়াল! দেয়াল কোথায়?

ডাক্তার জামিলকে ‘আপফিট’ লিখে ছেড়ে দিলেন। ঘটনাক্রমে সেদিন সন্ধ্যার শো’তে সিনেমা দেখতে গেলেন সেনাবাহিনীর ডাক্তার। আর তাঁর পাশেই সিট পড়ল জামিলের। ভয়ে কাঠ হয়ে গেল জামিল, যদি চিনতে পারেন, তাহলে তো দফারফা!

ডাক্তার এবার জামিলের দিকে তাকাতেই জামিল বলল, আচ্ছা ভাই, এই বাসটা কি গুলশান যাবে?