Tag archives for ডাকাত

ব্যাংক ডাকাতি

Bookmark

Share

ইটালির এক ব্যাঙ্ক ডাকাত নামকরা ব্যাঙ্ক ডাকাতের দলে যোগ দিতে গেল। মাইক তার ব্যাঙ্ক ডাকাতির সবকিছু শুনে বলল, তুমি তো অনেক বড় বড় ব্যাংক ডাকাতি করেছ। ধরাও পড় নি কখনো। কিন্তু তুমি সাউথ সাইড লিবার্টি ব্যাংকে কোনদিন ডাকাতি কর নি কেন?
– ওই ব্যাংকেই তো আমার ডাকাতির সব টাকা জমা আছে।

 

গান শেখার চর্চা

Bookmark

Share

কয়েক বছর ধরে গান শেখার চর্চা করে হতাশ হয়ে একদিন ছাত্রটি তার ওস্তাদজিকে বলল, “ওস্তাদজি, সত্যি কি আমার গান শেখা হবে না? এ গলা কি কোন কাজে লাগলে না?”
“কে বলেছে কাজে লাগবে না? বাড়িতে যখন আগুন লাগবে বা ডাকাত পড়বে, তখন নিশ্চয়ই কাজে লাগবে।”

রাজনীতিবিদ ও ডাকাতের পার্থক্য

Bookmark

Share

– বল তো একজন রাজনীতিবিদ আর একজন ডাকাতের মধ্যে পার্থক্য কী?
– পারছি না। তুই বল।
– ডাকাত ডাকাতি করে জেলে যায় আর রাজনীতিবিদ জেল থেকে এসে ডাকাতি শুরু করে।

পত্রিকা দেখলেই হবে

Bookmark

Share

ব্যাংক ডাকাতি করে ডাকাত দল চলে যাচ্ছে।
এক ডাকাত বলল, যাওয়ার আগে টাকাটা একবার গুনে নিলে হত না, ওস্তাদ!
সর্দার বলল, গোনার দরকার নেই। কাল পত্রিকা দেখলেই হবে।

রাতে এসো না কিন্তু

Bookmark

Share

ডাকাত জামিনে মুক্তি পেয়ে উকিলের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছেঃ
– স্যার, আপনি আমার অনেক উপকার করলেন। মাঝে মাঝে আপনার কাছে আসব।
– তা আসবে, তবে দয়া করে রাতে এসো না কিন্তু!

জর্জ ফিলিপস

Bookmark

Share

এটা একটি সত্য ঘটনা মিসিসিপির জর্জ ফিলিপস সম্পর্কে। সে যখন ঘুমাতে যাচ্ছিল তখন তার বউ তাকে ছাদের ঘরের আলো নিভিয়ে দিতে বলল। জর্জ দরজা খুলে লাইটটা অফ করতে গেল এবং তখন কিছু ডাকাতকে ডাকাতি করা অবস্থায় দেখতে পেল।

জর্জ তৎক্ষণাৎ পুলিশকে ফোন করল। পুলিশ জানতে চাইল ” সেই ঘরে আর কেউ কি আছে?” জর্জ বলল যে নেই, তারপর পরিস্থিতির বিবরন দিল।  পুলিশ বলল যে তাদের সব প্যাট্রল ব্যস্ত আছে। তারা জর্জকে দরজা লক করে পুলিশ আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বলল।

জর্জ ‘ঠিক আছে’ বলে ফোন রেখে দিল এবং ৩০ পর্যন্ত গুনে আবার পুলিশকে ফোন করল।

“হ্যাল, আমি আপনাদেরকে কিছুক্ষন আগে কল করেছিলাম। আমি এই মাত্র সব ডাকাতকে গুলি করে শেষ করেছি। আপনাদের এখন চিন্তা করার কোন কারন নেই।” একথা বলেই সে ফোন রেখে দিল।” পাঁচ মিনিটের মধ্যেই তিনটি সশস্ত্র পুলিশের গাড়ি এবং একটি আম্বুলেন্স এসে হাজির। পুলিশ ডাকাতদেরকে হাতে নাতে ধরল।

পুলিশদের মধ্যে একজন জর্জকে বলল, “আমি ভেবেছিলাম  তুমি বলেছ যে সব ডাকাতকে নিজেই মেরে শেষ করেছ”

জর্জ বলল, “আমিও ভেবেছিলাম  তুমি বলেছ যে তোমাদের সব বাহিনী এখন ব্যস্ত আছে।”

কয়টা গুলি নেবেন?

Bookmark

Share

সাতসকালে বন্দুকের দোকানে এসে হাজির হলো রিয়াজ। বেছে বেছে ভালো দেখে একটা বন্দুক কিনল। দোকানের ম্যানেজার জিজ্ঞেস করল, ‘স্যার, কয়টা গুলি নেবেন?’
রিয়াজ বলল, ‘দাঁড়ান, একটা ফোন করে নিই, “হ্যালো, অমুক ব্যাংক, মহাখালী শাখা? আচ্ছা, ওপর-নিচ মিলিয়ে আপনাদের মোট কয়জন গার্ড আছে…।”