Archives for পাঁচমিশালী

ধার্মিক ব্রাহ্মণ

Bookmark

Share

এক ধার্মিক ব্রাহ্মণ সাক্ষী দিতে কাঠগড়ায় উঠেছেন। – আপনার বয়স কত? – ভগবানের কৃপায় বিরাশি বছর। – সেটা আবার কী? – বিরাশি বছর রাখার জন্য ভগবানকে প্রণাম জানাচ্ছি। – বেশি কথা বলবেন না, যা জিজ্ঞেস করছি তার উত্তর দিন, আপনার বয়স কত? – বিরাশি বছর, ভগবান বড়ি বরুণাময়়। বিচারক বললেন, সরাসরি উত্তর দিন, না হলে আদালত অবমাননার জন্য আপনাকে শাস্তি পেতে হবে। এসময় অন্য পক্ষের উকিল বললেন, মহামান্য আদালত, আমি কি সাক্ষীকে কিছু জিজ্ঞেস করতে পারি? – করুন। উকিল বললেন, পণ্ডিত মশাই, ভগবানের অশেষ করুণায় আপনার বয়স কত? – বিরাশি বছর।

দেড় ডলারের আংটি

Bookmark

Share

– তুই নাকি মাত্র দেড় ডলারের একটা হীরার আংটি কিনেছিস?
– হ্যাঁ, তবে আংটিতে স্টোনটা নেই!

দুই ইহুদি ব্যবসায়ী

Bookmark

Share

দুই ইহুদী ব্যবসায়ী নিজেদের মধ্যে আলাপ করছে।
ওয়েনারঃ বছর দুই আগে আমার রেস্টুরেন্টে আগুন লেগে সব ছাই হয়ে যায়। অগ্নি বীমা করা ছিল বলে কোন রকমে সব পুশিয়ে গেছে। তা না হলে আমি পথের ভিখারী হয়ে যেতাম।

লোয়েবঃ সমুদ্রের জলোচ্ছ্বাসে সমুদ্র তীরের সমস্ত ভুসম্পত্তি আমারও নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। বীমাই আমাকে বাঁচিয়েছে। তা না হলে আমার অবস্থা খুব খারাপ হত।

ওয়েনারঃ আচ্ছা ভাই, তুমি সমুদ্রে জোচ্ছ্বাসের ব্যবস্থা কীভাবে করেছিলে?

আশি বছর

Bookmark

Share

আশি বছরের এক লোকের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে ডাক্তার মুগ্ধ।
– সত্যি! আপনি এ বয়সে এত চমৎকার স্বাস্থ্য ধরে রেখেছেন কীভাবে?
– দেখুন, আমি জীবনে কখনো মদ খাইনি, সিগারেট খাইনি।
– তা বাইরে যিনি অপেক্ষা করছেন তিনি আপনার ভাই বুঝি। বয়সের তুলনায় ওনার স্বাস্থ্যও বেশ ভাল মনে হচ্ছে।
– মাফ করবেন, উনি আমার ভাই নয়, উনি আমার বাবা!

দুই ঠগবাজ

Bookmark

Share

বহুদিন পর দুই ঠগবাজের দেখা।
– এই, দাঁত দিয়ে তুই তোর চোখ কামড়াতে পারবি?
– পারলে কত টাকা দিবি?
– পাঁচ শ’ টাকা। বাজি রইল।
দ্বিতীয় ঠগবাজ তার পাথরের চোখটা বের করে দাঁত দিয়ে কামড় দিল। বাজি হেরে প্রথম ঠগবাজ ভাবল অন্য চোখটা তো আর পাথরের হতে পারে না। বলল, বাকি চোখটা যদি দাঁত দিয়ে কামড়াতে পারিস তা হলে এক হাজার টাকা পাবি।
দ্বিতীয় ঠগবাজ হাঁ করে তার বাঁধানো দু’পাটি দাঁত বের করে চোখটা কামড়ে বলল, দে টাকা।

সেলুনে চুল কাটা

Bookmark

Share

সেলুনে চুল কাটাতে গেছেন এক ভদ্রলোক। নাপিত কাঁচি চালাতে শুরু করলে তিনি দেখতে পেলেন পায়ের কাছে একটা কুকুর চুপচাপ বসে আছে।
– কুকুরটা নিশ্চয়ই ট্রেনিংপ্রাপ্ত, কেমন শান্ত হয়ে বসে আছে!
– ওটা প্রতিদিনই ওখানে বসে থাকে, কানের লতি কখন পড়বে সেই আশায়।

পাণ্ডুলিপি

Bookmark

Share

সম্পাদকঃ এ কী, এই পাণ্ডুলিপি তো আমি তিন বছর আগেই বাতিল করে দিয়েছিলাম।
লেখকঃ জি, দিয়েছেন।
সম্পাদকঃ তা হলে আবার নিয়ে এসেছেন যে!
লেখকঃ ভাবলাম, তিন বছরে আপনার বুদ্ধিশুদ্ধির কিছুটা উন্নতি তো ঘটে থাকতে পারে।

পালানোর পথ পাবে না

Bookmark

Share

‘বাত পালাতে পথ পাবে না’ ‘বাত পালাতে পথ পাবে না’ বলে চেঁচাচ্ছিল এক লোক। মানে সে একজন ঔষধ বিক্রেতা। এক লোক এগিয়ে গেল।
– ভাই, সত্যিই এতে কাজ হয়?
– অবশ্যই।
– তা হলে এক বোতল দিন।
লোকটি কিনে নিয়ে চলে গেল। কিন্তু এক মাস ব্যবহার করেও কোন ফল পেলো না। এসে ধরল সেই লোককে,
– কী? আপনি তো বলেছিলেন বাত পালাতে পথ পাবে না, কিছুই তো হলো না।
– বাতের ব্যথা যায় নি?
– না।
– ঐ যে বললাম বাত পালাতে পথ পাবে না। পালানোর পথ পাচ্ছে না।

হাত দেখা গণক

Bookmark

Share

গণকঃ আপনি কমসে কম ১০০ বছর বাঁচবেন।
মানুষঃ যদি না বাঁচি?
গণকঃ তাহলে এসে আমার দুই গালে দুই থাপ্পড় মারবেন!

পল্টু

Bookmark

Share

পল্টু গেছে এক পরামর্শকের কাছে।
পল্টুঃ স্যার, পড়তে বসলেই আমার শুধু ঘুম আসে।
পরামর্শকঃ তোমাকে ধ্যান করতে হবে। শোন, পড়ার আগে আসন গেড়ে বসবে। চোখ বন্ধ করবে। কল্পণা করবে তুমি একটা সবুজ মাঠে দাঁড়িয়ে আছ। মাঠের শেষে একটা বাড়ি। তোমার মনে বাড়ি। মনের বাড়িতে প্রবেশ করবে। দেখবে সুন্দ ঝরনা। নিজের ইচ্ছে মতো ঘুরে বেড়াবে। দেখবে একদম ঝরঝরে লাগছে। ঘুম দূর হয়ে যাবে।
পল্টুঃ ধ্যুৎতুরি, আপনার কাছে আসাই ভুল হয়েছে। এতোকিছু না করে আধঘন্টা ঘুমিয়ে নিলেই হয়।

Page 1 of 7:1 2 3 4 »Last »