Archives for প্রেম, পরকিয়া ও বিয়ে

ডিভোর্সের শর্ত

Bookmark

Share

ডিভোর্সের প্রথম শর্ত পালন করলাম।
– সে কি? আপনি কি আপনার  বরকে ডিভোর্স করতে যাচ্ছেন?
– না, মানে কেবল বিয়ে করলাম আর কি।

মঙ্গলবার

Bookmark

Share

স্ত্রীঃ জান, আজ কী বার?
স্বামীঃ কেন, মঙ্গলবার।
স্ত্রীঃ জানি, আমি জানি তুমি ভুলে যাবে আজ আমাদের বিবাহবার্ষিকী। এবার বলল কীভাবে পালন করবে?
স্বামীঃ দু’ মিনিট নীরবতা পালন করলে কেমন হয়?

জামান ও হাবীব

Bookmark

Share

জামানঃ হাবীব, তোমার মাথায় ব্যান্ডেজ কেন?
হাবীবঃ ইমতিয়াজ পপিকে বিয়ে করে ফিরেছে।
জামানঃ ইমজিয়াজের বিয়ের সঙ্গে তোমার মাথার ব্যান্ডেজের সম্পর্ক কী?
হাবীবঃ পপিকে বিয়ে করার পরামর্শ আমিই তো তাকে দিয়েছিলাম।

জোচ্চর

Bookmark

Share

– তুমি একটা জোচ্চর-এখনই আমার বাড়ি থেকে বের হয়ে যাও।
– কিন্তু কেন প্রিয়তমা? এই গতকালই তো তুমি বলেছ আমার শরীরের প্রতিটি ইঞ্চি এমনকি আমার মাথার চুলকেও তুমি ভালবাস।
– হ্যাঁ, তবে তোমার কোটে অন্য মেয়ের চুল নয়!

কিউবা

Bookmark

Share

স্বামী অফিস থেকে বাড়ি ফিরলেন। শোবার ঘরে ঢুকে দেখলেন ছাইদানিতে একটা বিরাট কালো সিগারেট থেকে ধোঁয়া বেরুচ্ছে। স্বামী স্ত্রীর দিকে তাকিয়ে গর্জন করে উঠল, এটা কোথ্থেকে এল?
অনেক্ষণ কোন কথা শোনা গেল না। তারপর বাথরুম থেকে চাপা গলা শোনা গেল, ‘কিউবা’।

রেখা ও হাসান

Bookmark

Share

রেখাঃ আচ্ছা হাসান, তোমার বউ কি জানে আজ রাতে আমি তোমাদের বাড়িতে বেড়াতে যাব?
হাসানঃ জানে না মানে? তোমার যাওয়া নিয়ে ঝাড়া তিন ঘণ্টা বৌয়ের সাথে ঝগড়া করেছি!

সোফা

Bookmark

Share

অফিস থেকে বাড়ি ফিরে স্বামী স্ত্রীকে সোফায় চাকরের সঙ্গে অন্তরঙ্গভাবে বসে থাকতে দেখল। কিন্তু পত্নীকে ডিভোর্স করাও মুশকিল আবার ভাল চাকর পাওয়াও মুশকিল। অনেক ভেবে শেষে সোফাটাই বেঁচে দিল স্বামী।

মধ্যরাত

Bookmark

Share

মধ্যরাত। নির্জন রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছে এক যুবতী মেয়ে।
উল্টো দিকে দাঁড়িয়েছিল এক পাহারাদার। একজন পথচারীকে যেতে দেখে পাহারাদার বলল, এই যে ভাই, শুনুন।
– কী?
– ওই যে মেয়েটি যাচ্ছে, ওকে চুমু খাওয়ার তাল আছেন নাকি আপনি?
– কই, না তো।
– বেশ! তা হলে লণ্ঠনটা একটু ধরুন তো!

দীর্ঘদিনের বন্ধু

Bookmark

Share

দীর্ঘদিনের বন্ধু জন এবং রন। রনের পত্নীভাগ্য ভাল নয়। পরপর তিনটি বউ মারা গেল তার। প্রতিবারই জন শবযাত্রায় রনের সঙ্গী হয়।

রন চতুর্থবার বিয়ে করল। দুর্ভাগ্য কিছুদিন পর রনের চতুর্থ পত্নীও মারা গেল। কিন্তু এবার জন শবযাত্রায় গেল না। জনের বউ বলল, ‘কী ব্যাপার! তুমি শবযাত্রার আমন্ত্রনে গেলে না যে!’
জন বলল, ‘বারবার নিমন্ত্রন গ্রহন করতে লজ্জা করে। আমি আজ পর্যন্ত একবারও রনকে শবযাত্রায় নিমন্ত্রন করতে পারলাম না। তুমিই বল, এতে লজ্জা হয় না?

বিয়ের আসরে

Bookmark

Share

এক বিয়ের আসরেঃ
– দেখুন, এই মেয়েটিকে কোলে পিঠে করে মানুষ করেছি আর আজ তার বিয়ে হচ্ছে।
– কনে আপনার মেয়ে বুঝি?
– আরে না, আমার প্রাইভেট সেক্টেটারি ছিল।

Page 1 of 11:1 2 3 4 »Last »