Archives for জোকস সমগ্র

চিত্রকর্ম

Bookmark

Share

শিল্পীঃ আমার এ চিত্রকর্মটি কেমন হয়েছে?
দর্শকঃ স্বাক্ষরটা অসাধারণ হয়েছে।

কম্পিউটার চালানো

Bookmark

Share

-তুমি কম্পইউটার চালাতে পার?
-পারি।
-চালিয়ে দেখাও তো!
-কিন্তু এক্সেলারেটরটা কোথায়?

প্রেমিক প্রেমিকার আড্ডা

Bookmark

Share

প্রেমিক প্রেমিকা আড্ডা মারছে।
প্রেমিকঃ আচ্ছা, তোমরা মেয়েরা একসঙ্গে হলে কী বিষয় নিয়ে গল্প কর?
প্রেমিকাঃ কেন তোমরা ছেলেরা যা কর।
প্রেমিকঃ তোমরা মেয়েরা এত অশ্লীল!

ভিখারি ও খিচুড়ি

Bookmark

Share

ভিখারিকে দেখে গৃহিণী বললেন, তোমাকে তো মনে হয় চিনি। মাস দুই আগে তোমরা কয়েকজন আমার এখানে খিচুড়ি খেয়ে গিয়েছিলে না?
ভিখারি বলল, হ আম্মা। আমরা তিন জন আছিলাম। তার মধ্যে আমিই শুধু বাঁইচ্চা আছি। সেই খিচুড়ির ধাক্কা খালি আমিই সামলাইতে পারছিলাম।

বিরক্ত বাবা

Bookmark

Share

বিরক্ত হয়ে বাবা ছেলেকে বললেন, কেবল প্রশ্ন আর প্রশ্ন! এত প্রশ্ন কর কেন? আমার ছেলেবেলায় আমি যদি বাবাকে এত প্রশ্ন করতাম তা হলে যে কী হত তাই ভাবি। ছেলে বলল, তা হলে হয়তো আমার দু’একটা প্রশ্নের আজ জবাব দিতে পারতে বাবা।

বিশুদ্ধ পানি

Bookmark

Share

স্বাস্থ্য বিভাগের এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এক স্কুল পরিদর্শনে গিয়ে ছাত্রছাত্রী বিশুদ্ধ পানি পান করে কিনা তার খোঁজ খবর নিলেন।
– ছাত্র ছাত্রীদের বিশুদ্ধ পানির ব্যাপারে আপনারা সতর্ক তো?
– জ্বী।
– কীভাবে পানি বিশুদ্ধ করা হয়?
– প্রথমে পানি ফুটিয়ে নেওয়া হয়।
– তারপর?
– সেই পানি ফিল্টার করা হয়।
– বাহ্ বেশ! তারপর?
– তারপর নিরাপত্তার জন্য আমরা সবাই ডাব খাই।

ভ্যালেন্টাইন ডে – ২

Bookmark

Share

ছেলেঃ আজ ভ্যালেন্টাইন ডে, চল আজ আমরা অন্যরকম একটা কিছু করি।
মেয়েঃ কী সেটা?
ছেলেঃ ব্যাপারটা ‘চ’ দিয়ে।
মেয়েঃ বেশ!
তারপর চটাস করে একটা চড়ের শব্দ শোনা গেল।

ভ্যালেন্টাইন ডে – ১

Bookmark

Share

মেয়েঃ আজ ভ্যালেন্টাইন ডে, চল আজ আমরা অন্যরকম কিছু একটা করি।
ছেলেঃ কী সেটা?
মেয়েঃ ব্যাপারটা ‘চ’ দিয়ে
ছেলেঃ (খুশি) বেশ!
তারপর তারা ফুলপ্লেটে চটপটি খেয়ে বাড়ি ফিরল।

বেয়াদপ পাখি

Bookmark

Share

টিনা রাস্তা দিয়ে হাঁটছে
পাখির দোকানের পাশ দিয়ে যাবার সময় একটা খাঁচার তোতাপাখি তাকে দেখে বললো, “অ্যাই আপু, আপনি দেখতে খুব কুৎসিৎ। টিনা চটে গেলেও কিছু বলল না।
পরদিন সেই দোকানের পাশ দিয়ে যাবার সময়ও একই ঘটনা ঘটলো, পাখিটা বলে উঠলো, ‘অ্যাই আপু, আপনি দেখতে খুবই কুৎসিত!’
দিনা দাঁতে দাঁত চেপে হজম করে গেল।
তার পরদিন সেই দোকানের পাশ দিয়ে যাবার সময়ও পাখিটা বলে উঠলো, ‘অ্যাই আপু, আপনি দেখতে খুবই কুচ্ছিত!’ এবার টিনা মহা চটে দেকানের ম্যানেজারকে হুমকি দিলো, সে মাস্তান লেলিয়ে এই দোকানের বারোটা বাজিয়ে ছাড়বে। ম্যানেজার মাফ চেয়ে বললো, সে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে, পাখিটা আর এমন করবে না।
তার পরদিন সেই দোকানের পাশ দিয়ে যাবার সময় পাখিটা বলে উঠলো, ‘অ্যাই আপু!’
টিনা থমকে দাঁড়িয়ে পাখির মুখোমুখি হলো,’কী?’
পাখিটা বলল, ‘বুঝতেই তো পারছেন।’

 

আবার আসবে কিন্তু

Bookmark

Share

হাসপাতালে এক রোগী দীর্ঘদিন থাকল। ডাক্তার, নার্স, রোগী সবার সাথে তার খাতির হয়ে গিয়েছিল। একদিন সুস্থ হয়ে চলে যাচ্ছে সবাই বলল, “আবার আসবে কিন্তু”।

Page 1 of 212:1 2 3 4 »Last »